1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৩:৩৮ অপরাহ্ন

কাঁঠালিয়ায় আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে, রাজাকার পুত্রকে সাংগঠনিক সম্পাদক করায় তৃণমূলে ক্ষোভ

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৩০ বার পড়া হয়েছে
আওয়ামী লীগের কমিটিতে রাজাকার পুত্র
আওয়ামী লীগের কমিটিতে রাজাকার পুত্র

মো. আতিকুর রহমান
দলের দুঃসময়ের প্রকৃত ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতা-কর্মীদের বাদ দিয়ে আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে চিহ্নিত ও তালিকাভুক্ত রাজাকার পুত্র এবং বিএনপি থেকে সদ্য আওয়ামী লীগে যোগদানকারী এক নেতাকে গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা হয়েছে। এই দুই প্রভাবশালী ব্যক্তি দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ লুফে নেয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অতিসম্প্রতি কাঁঠালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দিয়েছে ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগ।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৫ ডিসেম্বর সম্মেলনের মাধ্যমে হাবিবুর রহমান উজির সিকদারকে সভাপতি ও মো. এমাদুল হক মনিরকে (বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান) সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করা হয়। দীর্ঘ ১০ মাস পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের তোড়জোড় শুরু হলে গোটা উপজেলার নেতা-কর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে আসে। অতিসম্প্রতি কাঁঠালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। তারপর থেকেই কমিটিতে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে চিহ্নিত ও তালিকাভুক্ত এক রাজাকার পুত্র এবং বিএনপি থেকে সদ্য আওয়ামী লীগে যোগদানকারী আরেক নেতাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করায় আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ এই দুটি পদে দলের নিবেদিতদের মূল্যায়ন করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন নেতা-কর্মীরা। এনিয়ে রাজনীতির বাইরেও সাধারণ জনগণের মাঝে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।
তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, রাজাকার পুত্র এবং বিএনপি থেকে সদ্য আওয়ামী লীগে যোগদান করা এক বির্তকিত নেতাকে কাঁঠালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে পদ দেয়া হয়েছে। ফলে কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন দলের ত্যাগী নেতারা। নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে উপজেলার চিহ্নিত ও তালিকাভুক্ত রাজাকার শৌলজালিয়া ইউনিয়ন পিচ কমিটির সভাপতি আব্দুর রশিদের পুত্র তরিকুল ইসলাম বুলবুলকে। তার বাবাকে এলাকাবাসী রশিদ রাজাকার নামেই চেনেন। অপরদিকে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া আলাউদ্দিন আল আজাদ বাদল একসময়ে বিএনপির রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। সম্প্রতি তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগে যোগদান করে তিনি পদ বাগিয়ে নিয়েছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক প্রবীণ নেতা জানিয়েছেন, সদ্য ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে যে আলাউদ্দিন আজাদ স্থান পেয়েছে সে পাটিখালঘাটা ইউনিয়ন বিএনপির একজন সক্রিয় নেতা এবং রাজাকার পুত্র তরিকুল ইসলাম বুলবুলকে দলের দুঃসময়ে কখনও আন্দোলন-সংগ্রামে পাওয়া যায়নি। আগামীতেও পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ রয়েছে।
আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, যারা আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করেছে তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হতে নয়, বরং তারা নিজেদের অতীত কর্মকান্ডকে লুকিয়ে কৌশলে আওয়ামী লীগে বিরোধ সৃষ্টি করছে। এদের বিরুদ্ধে দলের হাইকমান্ড থেকে জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে এদের জন্য ভবিষ্যতে আওয়ামী লীগকে চরম খেসারত দিতে হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লিগের সভাপতি হাবিবুর রহমান উজির সিকদার জানিয়েছেন, বুলবুল রাজাকারের পুত্র কিনা আমি জানিনা। যদি রাজাকারের পুত্র হয় তাহলে অবশ্যই আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে বাদ পড়বে। এছাড়াও যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাদের অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মো. শাহ আলম জানান, বাবা রাজাকার হলে ছেলেও কি রাজাকার? কাঁঠালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগকে বিতর্কিত করতে কিছু নেতা-কর্মী মরিয়া হয়ে উঠেছেন বলেও মন্তব্য করেছেন জেলার এ শীর্ষ নেতা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews