1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

ঝালকাঠিতে নাম সর্বস্ব সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো আত্মসাৎ করছে সরকারি টাকা, জেলা প্রশাসককে খতিয়ে দেখার দাবি

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৬ জুন, ২০২০
  • ৪১৩ বার পড়া হয়েছে

মানিক রায়
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে থেকে ঝালকাঠি জেলার ৩০টি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানকে ৬ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকার অনুদান প্রদান করেছে। জেলা প্রশাসকের কাছে এই প্রতিষ্ঠানের নামের তালিকা এবং অনুদানের মঞ্জুরীর অর্থ সরকারের পক্ষে প্রদান করার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থ বছরে এই মঞ্জুরী পাচ্ছে আঃ গণি বয়াতি শিল্প সংঘ ২০ হাজার টাকা, কবিতাচক্র ঝালকাঠি ২৫ হাজার টাকা, ঝালকাঠি শিল্পী পরিষদ ৩০ হাজার টাকা, প্রতীক নাট্যগোষ্ঠী ২০ হাজার টাকা, ঝালকাঠি থিয়েটার ও শিশু থিয়েটার ৩০ হাজার টাকা, মিতু সেতু সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও পাঠাগার ২০ হাজার টাকা, ধানসিঁড়ি অপেরা ২০ হাজার টাকা, সোনার বাংলা বাউল সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী ২০ হাজার টাকা, সুর সাগর সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, প্রতিভা সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ ২০ হাজার টাকা, আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠী ২০ হাজার টাকা, কিশোর থিয়েটার ২০ হাজার টাকা, রূপসী বাংলা সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, নৃত্য মেলা ২০ হাজার টাকা, সুগন্ধা বাউল শিল্পী ২০ হাজার টাকা, কিশলয় খেলাঘর আসর ২০ হাজার টাকা, কবি জীবনানন্দ সংগীত ২০ হাজার টাকা, উত্তরণ সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, কলতান সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদ ২০ হাজার টাকা, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ২০ হাজার টাকা, আবুল হাসেম সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, সপ্তগ্রাম সমন্বিত বাউল ক্যলাণ সংস্থা ২০ হাজার টাকা, প্রবাহমান বাংলার গ্রাম ২০ হাজার টাকা, সালমা শিল্পী গোষ্ঠী ২০ হাজার টাকা, সাইডো সংগীত একাডেমী ২০ হাজার টাকা, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ২০ হাজার টাকা।
অভিযোগ রয়েছে উল্লিখিত সংগনগুলোর মধ্যে ৩/৪টি সংগঠন ঝালকাঠিতে সক্রিয় রয়েছে। বাকি সংগঠনগুলো এক ব্যক্তি কেন্দ্রিক ও প্যাড ভিত্তিক সংগঠন। এদের কোন কার্যালয় ও কার্যক্রম নেই। ঝালকাঠির সংস্কৃতি চর্চায় এদের কোন ভূমিকাও নেই। নামসর্বস্ব সংগঠন মাত্র। প্যাড বানিয়ে, লোক সাজিয়ে প্রতি বছর এই অর্থ আত্মসাৎ করে আসছে অসৎ কিছু ব্যক্তি। বিষয়টি একাধিকবার আলোচিত হলেও এর কোন প্রতিকার হয়নি। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে খতিয়ে দেখার দাবি জানিয়েছেন জেলার প্রকৃত সংস্কৃত সেবিরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews