1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:২১ অপরাহ্ন

কাঁঠালিয়ায় ছৈলারচর থেকে উদ্ধার বৃদ্ধার পরিচয় পাওয়া গেছে

  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৮৮ বার পড়া হয়েছে
মানুষিক ভারসাম্যহীন ছকিনা বেগম।
মানুষিক ভারসাম্যহীন ছকিনা বেগম।

ফারুক হোসেন খান
দৈনিক শতকণ্ঠ পত্রিকাসহ গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর ঝালকাঠি জেলার কাঁঠালিয়ার ছৈলারচর থেকে উদ্ধার হওয়ার পর ৮দিন মানুষিক ভারসাম্যহীন অজ্ঞাত পরিচয়ের বৃদ্ধার পরিচয় মিলেছে।
গতকাল সোমবার বিকেলে উদ্ধার হওয়া বৃদ্ধার ছেলে মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার বদরপাশা এলাকার বাসিন্দা বাদশা মাতুব্বর কাঁঠালিয়ায় এসে হারিয়ে যাওয়া তার মাকে শনাক্ত করেন।
গত রোববার (১১অক্টোবর) রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের হেতালবুনিয়া জনমানবহীন নির্জন ছৈলারচর থেকে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করা হয়েছিল। গভীর রাতে অজ্ঞাত ওই নারীর কান্নার আওয়াজ শুনে স্থানীয় সাগর নামের এক যুবক চরের মধ্যে থেকে তাঁকে উদ্ধার করে ছৈলারচর সংলগ্ন কেল্লায় (উচু মাঠ) নিয়ে আসে।
খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন কেল্লায় ছুটে আসে। এসময় চর সংলগ্ন মশাবুনিয়া গ্রামের মল্লিক বাড়ী লোকজন তাকে তাদের বাড়ীতে নিয়ে যায়। পরে সদর ইউনিয়নের হেতালবুনিয়া ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মো. হারুন অর রশীদ খান তার ঘরে আশ্রয় দেন। জানতে চাইলে কে বা কাহারা তাকে চরে রেখে গেছে তা তিনি বলতে পারেননি। শুধু বলতে পারেন তার নাম ছকিনা বেগম, তাকে নদীর চরে বসতে বলেছে। তার ভাই আমির পুলিশ তাকে নিতে আসবে। বৃদ্ধা আরও জানান, মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানার পাশে তার বাড়ী।
এ খবর বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশের পর সেই তথ্য অনুযায়ী ওই বৃদ্ধার ছেলে মো. বাদশা মাতুব্বর ভগ্নিপতি আবুল হোসেন খালাসীকে সাথে নিয়ে উপজেলার হেতালবুনিয়া ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা মো. হারুন অর রশীদ খানের বাড়ীতে তাকে শনাক্ত করেন।
ছেলে বাদশা হাওলাদার জানান, তার মা মানুষিক ভারসাম্যহীন ছকিনা বেগম গত ৭ মাস পূর্বে বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি। বহু খোঁজাখুজির পরও তার কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। রোববার (১৮ অক্টোবর) রাজৈর উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পল্লবী বেগম তাদের ফোন করে হারিয়ে যাওয়া মায়ের সন্ধান দেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জানান, কাঁঠালিয়ার বাসিন্দা ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ওলিউল্লাহ আহাদ তার নিকট ফোন করে এ তথ্য দেন। কিভাবে তার মা এখানে আসছে তা বলতে পারেন না। ইউপি সদস্য মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশীদ খান বলেন, মানুষিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধাকে তার স্বজনদের হাতে তুলে দিতে পারায় তিনি খুশি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews