1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৯:০৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট:
ঝালকাঠিতে করেনাভাইরাসে ৩ জনের মৃত্যু টানা ৯ দফায় ইউপি চেয়ারম্যান পৌর মেয়র ও ৩০ ইউপিতে নৌকার জয় এমপি আমু’র সাথে নবনির্বাচিত মেয়রের সাক্ষাত ঝালকাঠিতে জনপ্রতিনিধিতে হেট্রিক করলেন যাঁরা ঝালকাঠি জেলা কল্যাণ সমিতি খুলনার নেতৃবৃন্দের বিবৃতি, ঝালকাঠি পৌর মেয়রসহ নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন শংকরপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভবনটি অতি ঝুঁকিপুর্ণ ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ভিডিপি সদস্যদের সতর্ক দায়িত্ব পালন ঝালকাঠি পৌরসভা এবং ৩১টি ইউনিয়নে স্বতঃস্ফুর্ত ভোট অনুষ্ঠিত, দুই প্রার্থীর ভোট বর্জন ঝালকাঠি পৌর নির্বাচনে নৌকার জয় ঝালকাঠির ৩১ ইউপিতে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হলেন যাঁরা
শিরোনাম:
ঝালকাঠিতে করেনাভাইরাসে ৩ জনের মৃত্যু টানা ৯ দফায় ইউপি চেয়ারম্যান পৌর মেয়র ও ৩০ ইউপিতে নৌকার জয় এমপি আমু’র সাথে নবনির্বাচিত মেয়রের সাক্ষাত ঝালকাঠিতে জনপ্রতিনিধিতে হেট্রিক করলেন যাঁরা ঝালকাঠি জেলা কল্যাণ সমিতি খুলনার নেতৃবৃন্দের বিবৃতি, ঝালকাঠি পৌর মেয়রসহ নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন শংকরপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভবনটি অতি ঝুঁকিপুর্ণ ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ভিডিপি সদস্যদের সতর্ক দায়িত্ব পালন ঝালকাঠি পৌরসভা এবং ৩১টি ইউনিয়নে স্বতঃস্ফুর্ত ভোট অনুষ্ঠিত, দুই প্রার্থীর ভোট বর্জন ঝালকাঠি পৌর নির্বাচনে নৌকার জয় ঝালকাঠির ৩১ ইউপিতে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হলেন যাঁরা

ঝালকাঠিতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে অনাগ্রহ

  • প্রকাশিত : রবিবার, ৬ জুন, ২০২১
  • ৩৮ বার পড়া হয়েছে
ঝালকাঠিতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে অনাগ্রহ
ঝালকাঠিতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে অনাগ্রহ

স্টাফ রিপোর্টার

ঝালকাঠি জেলায় করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫হাজার ৬২১জন। এর মধ্যে আক্রান্ত হয়েছে ১হাজার ৪২জন এবং মারাগেছে ৩০জন। প্রথম ধাপের ডোজে ১৯৩৪৮ জন এবং দ্বিতীয় ধাপের ডোজে ১৪০৬৮জনে টিকা নিয়েছেন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী প্রথম ধাপের চেয়ে দ্বিতীয় ধাপে টিকা দিতে অনাগ্রহ দেখা দিয়েছে। প্রচার-প্রচারণা অব্যাহত থাকার পরেও প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় বারের ডোজ নিতে আগ্রহ কম দেখা যাচ্ছে। অপরদিকে প্রথম ধাপে টিকার ডোজ গ্রহণের চেয়ে দ্বিতীয় ধাপে টিকার ডোজ গ্রহণে বাকি রয়েছেন ৫হাজার ২০২জন। ঝালকাঠি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হিমাগারে বর্তমানে টিকা মজুদ আছে ২হাজার ৪৩০টি। প্রথম ডোজ গ্রহিতাদের প্রয়োজনের তুলনায় ঘাটতি রয়েছে ২হাজার ৭৭২টি। গত ৭ ফেব্রæয়ারী সারাদেশের ন্যায় ঝালকাঠিতেও আনুষ্ঠানিকভাবে সবার প্রথমে প্রথম ডোজ টিকা নিয়ে উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। এরপর পর্যায়ক্রমে শীর্ষস্থানীয় সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও সুশীল সমাজের লোকজন টিকা নেন বেশিরভাগ বয়স্ক লোকজনই এ টিকা নিতে আগ্রহ ছিলেন। ঝালকাঠি সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী এ তথ্য জানান। সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলায় লোক সংখ্যা রয়েছে ৭লাখ ৫হাজার ৯৬৭জন। করোনাভাইরাসের টিকা প্রথম ধাপের ডোজে১৯৩৪৮ জন এবং দ্বিতীয় ধাপের ডোজে ১৪০৬৮জনে টিকা নিয়েছেন। এতে প্রথম ধাপে টিকা নেয়া বাকি আছে ৬লাখ ৮৬হাজার ৬১৯জন এবং দ্বিতীয় ধাপে টিকা নেয়া বাকি আছে ৬লাখ ৯১হাজার ৮৯৯জন।

৬লাখ ৮৬হাজার ৬১৯জন মানুষ প্রথম ডোজের টিকা নেননি। একই সঙ্গে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রেও ধীরগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। টিকা গ্রহণে এই অনাগ্রহ কেন, তা সম্পর্কে স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাও সঠিক ধারণা পাচ্ছেন না।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, গত জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে ঝালকাঠিতে ১২ হাজার ডোজ কোভিশিল্ডের টিকা এসেছে। পরে পর্যায়ক্রমে আরো এসেছে। এসব টিকা আইস-লাইনড রেফ্রিজারেটর (আইএলআর) বা হিমায়িত বাক্সে সংরক্ষণ করা হয়। অনেক নিবন্ধনকৃত মানুষ টিকা নেননি।

অপর দিকে ৮ এপ্রিল থেকে ঝালকাঠি জেলায় টিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ শুরু হয়েছে। ওই দিন থেকে বৃহস্পতিবার (৩জুন) দ্বিতীয় ধাপের ডোজে ১৪০৬৮জনে টিকা নিয়েছেন। যা বরিশাল বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে কম নিয়েছেন ঝালকাঠি জেলায়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলেছেন, যিনি টিকা নিয়েছেন, তাকে ওই সময় একটি কার্ড দেওয়া হয়েছে। এখন খুদে বার্তা না পেলে ওই ব্যক্তি কার্ড নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বললে তিনি এ বিষয়ে সমাধান দেবেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এমন নির্দেশনা দেওয়া আছে। এদিকে কেন্দ্রের সংখ্যা কম বলে একসঙ্গে সবাইকে খুদে বার্তা পাঠানোর পর সবাই একসঙ্গে ভিড় করলে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। তাই বর্তমানে খুদে বার্তা একটু সীমিত কওে দেওয়া হচ্ছে। তবে এতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই, সবাই টিকা পাবেন বলেও জানায় সূত্রটি।

সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমান ঢালী বলেন, ‘আমরাও এর পেছনে কোনো যুক্তি দেখছি না। কারণ, গণমাধ্যমসহ স্বাস্থ্য বিভাগ, প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ বিভিন্ন পক্ষ থেকে টিকা নেওয়ার ব্যাপারে ব্যাপক প্রচার চালানো হয়েছে। তারপরও টিকা নিতে অনাগ্রহ, ভীতি কিংবা অসচেতনতা থাকার কথা নয়। এর পেছনে গোঁড়ামি ও কুসংস্কার কাজ করছে বলে মনে হচ্ছে। তবে অনেকে অসুস্থতার কারণেও টিকা নেননি। তবে যারা নেননি, তাদের এখনো নেওয়ার সুযোগ আছে। দ্বিতীয় ডোজের পাশাপাশি প্রথম ডোজের টিকা কার্যক্রমও চালু রেখেছি’ বলেও জানান সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমান ঢালী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews