1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন

ঝালকাঠিতে করোনা পরীক্ষার জন্য নেই পিসিআর ল্যাব ও টেস্ট বুথ

  • প্রকাশিত : রবিবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৯৮ বার পড়া হয়েছে
ঝালকাঠিতে করোনা পরীক্ষার জন্য নেই পিসিআর ল্যাব ও টেস্ট বুথ
ঝালকাঠিতে করোনা পরীক্ষার জন্য নেই পিসিআর ল্যাব ও টেস্ট বুথ

মো. আতিকুর রহমান
ঝালকাঠিতে প্রতিদিনই বাড়ছে করোন রোগীর সংখ্যা। অথচ এখানে করোনা পরীক্ষার জন্য নেই কোন পিসিআর ল্যাব এবং নমুনা সংগ্রহের বুথ। বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পাঠিয়ে রির্পোট পেতে একসপ্তাহেরও বেশি সময় লেগে যায়। আর ততদিনে সংক্রমিত ব্যক্তির মাধ্যমে রোগ ছড়িয়ে পরে অনেকের শরীরে। সিভিল সার্জন বিষয়টি স্বীকার করে একটি পিসিআর ল্যাব স্থাপনের প্রয়োজনীয়তার কথা জানিয়েছেন। ঝালকাঠিতে এপর্যন্ত ৪০৫ জন ব্যক্তির করোনা পজেটিভ সনাক্ত হয়েছে, এর মধ্যে মারাগেছে ১৩ জন আর উপসর্গে মারাগেছে আরো ৩৮ জন।
জানাগেছে, ঝালকাঠিতে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্য। ইতোমধ্যে এ সংখ্যা ৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। জেলায় মৃতের সংখ্য প্রায় অর্ধশত ছাড়িয়ে গেলেও সরকারি হিসেবে তা ১৯জনেই সীমাবদ্ধ রয়েছে। এ ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও এখানকার মানুষের মধ্যে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা কিম্বা, মাস্ক ব্যাবহারের আগ্রহ খুবই কম। রাস্তা ঘাটে লোক চলাচল দেখে মনেই হবে না এ ধরনের একটি ভয়াবহ পরিস্থিতি চলছে। জেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা প্রশাসন জনসচেতনতায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। আদায় করা হচ্ছে জরিমানাও।
জেলায় করোনা পরীক্ষার জন্য কোন পিসিআর ল্যাব নেই, নেই নমুনা সংগ্রহের বুথ। বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পাঠিয়ে রিপোর্ট পেতে এক সপ্তাহেরও বেশি সময় লেগে যায়। ততদিনে এ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ব্যক্তির মাধ্যমে ব্যাপকভাবে সংক্রমিত হচ্ছেন অনেকেই। চিকিৎসার জন্য জেলার চারটি সরকারি হাসপাতাল এবং একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ৩২টি বেড রাখা হলেও চিকিৎসার সুযোগ নেই বললেই চলে। অবিলম্বে জেলায় একটি পিসিআর ল্যব এবং নমুনা সংগ্রহের জন্য বুথ স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
জানাগেছে, দেশের সব জেলা ও বড় হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ বেড তৈরি রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিলেও ঝালকাঠি স্বাস্থ্য বিভাগ এগোচ্ছে ধীর গতিতে। প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেওয়া নির্দেশনা বাস্তবায়নে কোনও তোড়জোড় নেই এ জেলার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের।
কর্মপরিকল্পনা, চিকিৎসক সংকট, সরঞ্জামাদি ব্যবস্থাসহ আইসিইউ বেড স্থাপন সহসাই হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে কর্মরত ডা. আমির হোসেন।
সরকার ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়নে সবার আন্তরিকতা প্রয়োজন। শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। প্রতিদিন গড়ে ৭/৮জনে নমুনা দিলে তা থেকে ২জনের করোনা শনাক্ত হচ্ছে। তড়িঘড়ি করে করোনা মোকাবিলায় এ কর্মপন্থা বাস্তবায়ন করা দরকার। বিভাগীয় হাসপাতালেই আইসিইউ চিকিৎসক না থাকায় বেড চালু করতে পারছে না, সেখানে জেলা সদরে কিভাবে এত দ্রæত এই আদেশ বাস্তবায়ন হবে এমন প্রশ্ন রেখেছেন অনেকে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আইসিইউ বেড তৈরি করতে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্টের কাজই শুরু করতে পারেনি ঝালকাঠি স্বাস্থ্য বিভাগ। অক্সিজেন সিলিন্ডার নয়, প্লান্ট দিয়ে অক্সিজেন সরাসরি আইসিইউ বেডে সঞ্চালন করা হয়। অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের জায়গা নির্ধারণ করে চিঠি দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগকে। আইসিইউ বেড চালাতে বিশেষজ্ঞের সংকট রয়েছে। এনেসথেসিয়া প্রশিক্ষিত ডাক্তার আইসিইউ বেডের দায়িত্বে থাকেন। এনেসথেসিয়া চিকিৎসক না থাকায় ঝালকাঠি সরকারি মা ও শিশু হাসপাতালে অপারেশন বন্ধ রয়েছে। ফলে গরিব ও অসহায় রোগীরা অধিক মূল্যে বেসরকারি ক্লিনিক ও হাসপাতালে গিয়ে সিজারিয়ান অপারেশন করাচ্ছেন। আইসিইউ চিকিৎসক পেতে এনেসথেসিয়া প্রশিক্ষিত চিকিৎসক পদায়ন জরুরি বলে মনে করছেন চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা।
ঝালকাঠি সিভিল সার্জন সূত্র জানায়, জেলায় একটি আইসিইউ ইউনিট চালু করতে প্রথমেই দরকার অক্সিজেন প্লান্ট। প্রত্যেকেটি বেডে সেন্ট্রালভাবে অক্সিজেন পৌঁছে যাবে সেই প্লান্ট থেকে। ইতোমধ্যে অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের জায়গা ঠিক করে স্বাস্থ্য বিভাগকে চিঠি দিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন। তবে কবে থেকে কাজ শুরু হবে জানাতে পারেনি স্বাস্থ্য বিভাগ। অক্সিজেন প্লান্টের কার্যাদেশ দেওয়ার পর সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপন কাজ শুরু করবেন। প্লান্ট তৈরি হলেই শুরু হবে আইসিইউ বেড তৈরির কাজ। এজন্য বেশ কিছু দিন সময় লাগবে বলেও জানা গেছে।
ঝালকাঠি সিভিল সার্জন ডাঃ রতন কুমার ঢালী জানান, পিসিআর ল্যাবের জন্য ইতোমধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চাহিদা পাঠানো হয়েছে। শিঘ্রই বুথ স্থাপন করা হবে।
সাবেক সিভিল সার্জন অক্সিজেন প্লান্ট তৈরির জন্য জায়গা চূড়ান্ত করে স্বাস্থ্য বিভাগকে চিঠি দিয়েছেন। অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপন করা হলে আইসিইউ বেড তৈরি করা হবে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আইসিঅইউ বেড তৈরি করতে স্বাস্থ্য বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews