1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০২:৫৮ অপরাহ্ন

ঝালকাঠিতে কিস্তি দিতে না পারায় মারধর, হত্যা চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০
  • ১৯৬ বার পড়া হয়েছে

মোঃ আতিকুর রহমান
ঝালকাঠিতে সমবায় এর নামে ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠেছে ক্ষুদ্র ঋণের ব্যবসা। সমবায় আইন লংঘণ করে চলছে রমরমা সুদের লেনদেন। দরিদ্র জনগোষ্ঠী ও ক্ষুদ্র দোকানীরা ঋণের বোঝায় দিশেহারা। একটি ঋণ পরিশোধ করতে নতুন করে জড়িয়ে পড়ছে আরেকটি ঋণের বোঝায়। ফলে দারিদ্রের দুষ্টচক্র থেকে মুক্তি মিলছেনা ঋণগ্রহিতাদের। এদিকে করোনা মহামারীর মধ্যেও কিস্তির আদায়ে ঋণ গৃহীতাকে চাপ দিচ্ছে এসব সমবায় সমিতি নামের প্রতিষ্ঠান। ফলে অসহায় হয়ে পড়েছে অসংখ্য ঋণ গৃহীতা।
করোনা মহামারির মধ্যে কিস্তির টাকা না দিলে ঋণ গ্রহিতাকে সমিতির মালিক পক্ষ মারধর করে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ কিস্তির টাকা দিতে না পারায় মজিবর রহমান (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে ধরালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা চেষ্টা ও ছিনতাইয়ের অভিযোগ অভিযোগ উঠেছে মিলন হাওলাদার (৩৮) ও সুমন মাঝি ( ৩৬) নামের দুই এনজি কর্মীর বিরুদ্ধে।
গত বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সন্ধ্যায় শহরের পুরাতন কলেজ খেয়াঘাটের এ ঘটনা মজিবর বাদী হয়ে ঝালকাঠি সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মিলন মোবাইল ফোনে মজিবরকে ডেকে নিয়ে করোনা মহামারির মধ্যেও জোর করে টাকা আদায়ের জন্য চাপ দেয়। এ সময় মজিবর করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি শিথিল হওয়ার পর টাকা দেয়ার কথা বললে মিলন ও সঙ্গে থাকা সুমন মজিবরকে বেধরক মারধর করে।এক পর্যায়ে তারা মজিবরকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা চেপে ধরে এবং গলায় চাকু দিয়ে পোজ দেয়। এতে তার রক্তক্ষরণ হয়। পরে তার সাথে থাকা টাকা, মোবাইলসহ অন্যান্য জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে মজিবরকে খুনের ভয় দেখিয়ে মিলন ও সুমন চলে যায়।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মজিবর বলেন, করোনা মহামারীর পূর্বে আমি ঝালকাঠি শহরের সদর চৌমাথা এলাকার আশার আলো কৃষি উন্নয়ন সমবায় সমিতির লিমিটেড থেকে ৪০ হাজার টাকা ঋণ উত্তোলন করি। নিয়মিত ৯টি কিস্তির টাকাও পরিশোধ করি। কিন্তু এর পর করোনা মহামারী শুরু হলে আর্থিকভাবে অসহায় হয়ে পরি এবং তিন মাস ধরে কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হই। তারপরও আমার কাছ থেকে জোর করে আদায় করার চেষ্টা করে মিলন ও সুমন। আমি অল্পের জন্য প্রাণ বেঁচে যাই। এ ঘটনার দৃষ্টান্ত বিচার দাবী করছি।
এবিষয়ে মিলনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করতে ফোনে কল করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে ঝালকাঠি থানার ওসি খলিলুর রহমান বলেন, কিস্তি না দেয়ায় মারধর করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে এক ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
অপরদিকে ঝালকাঠি শহরতো বটেই গ্রামে গঞ্জেও ব্যঙের ছাতার মত ছড়িয়ে পড়েছে কিস্তি ঋণের ব্যবসা। সমবায় সমিতির নাম ভাঙিয়ে দৈনিক, সাপ্তাহিক এবং মাসিক কিস্তিতে চড়া সুদে ঋণের এ ব্যবসা চলছে রমরমা। কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড কিংবা অফিস থাকলেও বেশির ভাগই চলে আড়ালে বাসা বাড়িতে। আবার কেউ কেউ কৃষক ও ক্ষুদ্র পেশাজীবিদের নামে সমবায় থেকে নিবন্ধন নিয়ে করছেন সুদের ব্যবসা। আর ঋণ গৃহিতা হিসেবে দুষ্ট সুদীচক্র বেছে নিচ্ছেন ছোট ছোট দোকানদার, গ্রামের দরিদ্র জনগোষ্ঠী এবং চরাঞ্চলের দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষজনকে।
কিন্তু জেলা সমবায় অফিস সূত্রে জানাগেছে, সমবায় নীতিমালা অনুয়ায়ি নির্দিষ্ট পেশাজীবী ও উৎপাদনকারীদের নিয়ে সমবায় সমিতি গড়ে তোলার বিধান রয়েছে। আর সেখানে সদস্যদের শেয়ারের শতকরা ৪০ ভাগ ও কেলবমাত্র ওই সংগঠনের সদস্যদের মাঝে ঋণ দেয়ার বিধান রয়েছে।
জেলা সমবায় কর্মকর্তার কার্যালয়ের দেয়া সূত্রমতে, ঝালকাঠি জেলায় নিবন্ধিত সমবায় সমিতি রয়েছে মোট ১১৯৪ টি। এরমধ্যে কেন্দ্রীয় ১০টি, প্রাথমিক সাধারন ৬৮১টি ও প্রাথমিক পল্লী উন্নয়ন (বিআরডিবি) ৫০৩টি। সাধারন ৬৮১টির মধ্যে ৫০টির বেশি অফিসিয়াল বৈধ কোন কার্যক্রম নেই। অপর দিকে নিময়নীতি লংঘন করে সমবায়ের নামে সুদের ব্যবসা যারা চালিয়ে যাচ্ছে তার সংখ্যা জেলা জুড়ে হাজারেরও বেশি।
ঝালকাঠি জেলা সমবায় অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, ঝালকাঠিতে মার্চ মাসে প্রথম যোগদান করেছি। সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী কোন ধরনের ঋণ প্রদান ও আদায় করা যাবে না। যদি কোন গ্রাহক তার সঞ্চয় তুলে নিতে চায় তাহলে তাকে সঞ্চয় ফেরত দেয়া যাবে। ঋণ আদায়ে যেখানে বিধি নিষেধ আছে সেখানে কিস্তি না দেয়ায় মারধর করা হয়েছে গ্রাহককে এবং তা নিয়ে থানায় মামলা পর্যন্ত হয়েছে। যা খতিয়ে দেখে অভিযোগের সততা থাকলে ওই সমিতির লাইসেন্স বাতিল করে বিভাগীয় মামলা করা হবে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews