1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৮:১৩ অপরাহ্ন

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের, ব্রাদার সবুজের বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে রোগীর সেবা দেয়ার অভিযোগ- ব্যবস্থা নেয়ার দাবি

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২০ জুন, ২০২১
  • ৫৯ বার পড়া হয়েছে
ব্রাদার সবুজের বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে রোগীর সেবা দেয়ার অভিযোগ
ব্রাদার সবুজের বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে রোগীর সেবা দেয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্মরত ব্রাদার সবুজ কান্তি সাধককে টাকা দিয়ে চিকিৎসা নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগে জানাগেছে, গত ১৮ জুন ঝালকাঠি সদর উপজেলার বিনয়কাঠি ইউনিয়নের দঃ মানপাশা গ্রামের রোগী শর্মী (১৫) বাড়ির বাথরুমে আছার খেয়ে হাত কেটে যায়। বাবা নির্মাণ শ্রমিক মো. শহিদুল ইসলাম মেয়ের চিকিৎসার জন্য দুপুর ১ টার দিকে হাসপাতালে আসেন। এসময় জরুরী বিভাগে কর্মরত ব্রাদার সবুজ কান্তি শর্মীর হাত সেলাইয়ের জন্য ২ হাজার টাকা দাবি করে। বাবা শহিদুল ১৫শত টাকা দিতে চাইলে রাজি না হওয়ায় ২ হাজার টাকাই দিতে হয় সবুজকে। এরপর তিনি টাকা নিয়ে সেলাই করে।

এ বিষয়ে শর্মীর বাবা শহিদুল ইসলাম অভিযোগে আরো জানান, আমরা গরীব মানুষ। বিপদে পড়ে এখানে আসি। আমাদের কাছে এভাবে টাকা দবি করলে আমরা কি করতে পারি। আমি সবুজ স্যারকে ২ হাজার টাকা দিলে সে মেয়ের হাত সেলাই করতে রাজি হয়। যাবার সময় সবুজ স্যার আমাকে তার ০১৭৩৯৫১৬১৬৪ নম্বর দিয়ে বলে কোন সমস্যা হলে জানাবেন।

এ অভিযোগের ব্যাপারে এ প্রতিবেদক ফোনে অভিযুক্ত ব্রাদার সবুজ কান্তি সাধকের বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি প্রথমে ফোনটি কেটে দেন। দ্বিতীয়বার ফোন করলে তিনি ফোনে কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্মরত ব্রাদার সবুজ কান্তি সাধকের বিরুদ্ধে রোগীদের অনেক সুনির্দিষ্ট লিখিত অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে সম্প্রতি সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটি সত্যতা পেলেও রহস্যজনক কারণে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেনা। এতে সবুজ কান্তি আরো বেপরোয়া হয়ে উঠছে। অতিষ্ঠ রোগীরা এবং ভুক্তভোগী মহল জরুরী বিভাগ থেকে সবুজ কান্তিকে সরাতে জেলা প্রশাসকের জরুরী হস্তকেক্ষপ কামনা করেছেন।

টাকার বিনিময়ে সবুজ কান্তি সেবা দেয়ার বিষয়ে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক জাফর আলী দেওয়ান জানান, তার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। সম্প্রতি গঠিত কমিটির তদন্তে রোগীদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার সত্যতা মিলেছে। কিন্তু সে টাকা ফেরত দিয়ে রোগীর সাথে সমঝোতা করে ফেলে। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সিভিল সার্জন স্যারকে অনুরোধ করেছি। তিনি বলেছেন সবুজকে এখান থেকে সরালে নাইট ডিউটিতে সমস্যা হবে।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডাঃ রতন কুমার ঢালী শতকণ্ঠ’কে বলেন, হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্মরত ব্রাদার সবুজ কান্তি সাধকের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কিন্তু এখনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। রিপোর্টে অভিযোগের সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ১৮ জুন তারিখ মানপাশার রোগী শর্মীর কাছ থেকে ব্রাদার সবুজ কান্তি টাকা নিয়ে সেবা দেয়ার ঘটনা তার জানানেই বলে জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews