1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন

কাঁঠালিয়ায় জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত দুই শিক্ষককে শোকজ

  • প্রকাশিত : শনিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২০
  • ১৭৮ বার পড়া হয়েছে
দুই শিক্ষককে শোকজ

স্টাফ রিপোর্টার
ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থেকে অন্য শিক্ষক ও অভিভাবকদের কর্মসূচিতে যোগদানে বাধা প্রদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত উপজেলার চেঁচরীরামপুর এম এল মাধ্যমিক বিদালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছরোয়ার হোসেন ও সহকারী শিক্ষক সঞ্জিব কুমার দাসকে কারণ দর্শানো (শোকজ) হয়েছে।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীরা জানান, প্রধান শিক্ষক মো. মেহেদী হাসানের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক ছরোয়ার হোসেন বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সরকারি কোন কর্মসূচিতে যোগদেন না। জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে সকল শিক্ষককে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্মসূচি পালনে উপস্থিত থাকার নির্দেশনা ছিল। কিন্তু সহকারী প্রধান শিক্ষক ছরোয়ার হোসেন ও সহকারী শিক্ষক সঞ্জিব কুমার দাস বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচিতে আসেনি। এমনকি এ দুই শিক্ষক বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষকদের কর্মসূচিতে যোগদানে বাধা দেন। অভিভাবকদের বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে নানা কটূক্তি করে অনুষ্ঠানে যেতে নিষেধ করেন তাঁরা। এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষক মো. মেহেদী হাসান গত ১৫ আগস্ট দুই শিক্ষককে শোকজ করেন। এর অনুলিপি প্রদান করা হয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বরিশাল বিভাগীয় পরিচালক, উপপরিচালক ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাসহ ঊর্ধ্বতন ১১ জনের কাছে। বরিশাল বিভাগীয় উপপরিচালক বিষয়টি তদন্তের জন্য ঝালকাঠি জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সিদ্দিকুর রহমান খানকে দায়িত্ব দেন। তিনি বুধবার অভিযুক্ত দুই শিক্ষক ও বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষক-কর্মচারীদের বক্তব্য গ্রহণ করেন।
ঝালকাঠি জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সিদ্দিকুর রহমান খান বলেন, ডিডি স্যারের নির্দেশে আমি তদন্ত শুরু করেছি। বিদ্যালয় এলাকায় রাজনৈতিক জটিলতা রয়েছে, তাই সকল শিক্ষক ও কর্মচারীকে আমার অফিসে উপস্থিত করে তাদের বক্তব্য শুনেছি। এখনো প্রতিবেদন তৈরি করা হয়নি। প্রতিবেদন ডিডি স্যারের কাছে পাঠানো হবে, তারাই এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
এ ব্যাপারে চেঁচরীরামপুর এম এল মাধ্যমিক বিদালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছরোয়ার হোসেন বলেন, আমরা ১৫ আগস্ট অনুষ্ঠান করেছি। প্রধান শিক্ষক তিনি শোকজ করার এখতিয়ার রাখেন না। আমরা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে এ বিষয়ে বক্তব্য দিয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews