কাঁঠালিয়ায় নতুন চরে পাখির অভয়ারণ্য

0
181
শৌলজালিয়া-বেতাগী খেয়াঘাট সংলগ্ন বিষখালি নদীর বুকে জেগে ওঠা চরে পাখীদের অভয়ারণ্য ঘোষণা।
শৌলজালিয়া-বেতাগী খেয়াঘাট সংলগ্ন বিষখালি নদীর বুকে জেগে ওঠা চরে পাখীদের অভয়ারণ্য ঘোষণা।

ফারুক হোসেন খান
ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার শৌলজালিয়া ইউনিয়নের বিষখালী নদীর বুক চিড়ে জেগে ওঠা নতুন চরকে পাখির অভয়ারণ্য ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রশাসন। গত শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এর উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুফল চন্দ্র গোলদার। এসময় শৌলজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হোসেন রিপন, শৌলজালিয়া হক্কোননুর দরবার শরীফের পীর আলহাজ্ব মঞ্জিল মোরশেদ, সাবেক প্রধান শিক্ষক মো. মনোয়ার হোসেন, ইউপি সদস্য মো. সামসুল আলম, মো. খবির উদ্দিন, সৈয়দ আবদুল কাইয়ুম, মো. ছগির হোসেন, আঃ সালাম গাজী, মো. রিপন হোসেনসহ প্রশাসনের কর্মকতাবৃন্দ। উপজেলার শৌলজালিয়া মৌজায় ৩৫ বছর পূর্বে ১০৩ একর এলাকা জুড়ে বিষখালী নদীতে জেগে ওঠে এ চর। বঙ্গোপসাগর থেকে ৬৫ কিলোমিটার উত্তরে শাখা বিষখালী নদীর বুকে জেগে নৈসর্গিক এ চরের চার পাশে নদী বেষ্টিত এবং ছইলাসহ বিভিন্ন বৃক্ষ লতায় ঘেরা অপরুপ এ চর। চরে শালিক, বক ও মাছরাঙসহ বিভিন্ন ধরণের পাখির আনাঘোনা হওয়ায় এ চরকে পাখির অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়। চরের অপর পাড়ে বরগুনা জেলার বেতাগী পৌর শহর। যাতায়াত ব্যবস্থা ভাল হওয়ায় প্রতিদিন নৌকা ও ট্রলারে চরে পাখি প্রেমিসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ঘুরতে আসেন।
শৌলজালিয়া ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে এ চরকে “শেখ রাসেল ইকোপার্ক” নাম করণ করে আরো সমৃদ্ধশালী করার দাবী জানান চেয়ারম্যান মাহমুদ হোসেন রিপন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুফল চন্দ্র গোলদার বলেন, বিষখালী নদীর বুকে জেগে ওঠা ৩০ বছর আগের এ নৈসর্গিক চরকে পাখির অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়েছে। এতে পাখির বংশ বৃদ্ধি পেয়ে প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here