1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১১:০৩ অপরাহ্ন

নলছিটিতে রুম্মান হত্যাকারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার দাবিতে সড়ক অবরোধ, লাশ নিয়ে বিক্ষোভ

  • প্রকাশিত : বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৯৮ বার পড়া হয়েছে
ঝালকাঠির নলছিটিতে আনিস বিশ্বাস রুম্মান হত্যাকারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল।
ঝালকাঠির নলছিটিতে আনিস বিশ্বাস রুম্মান হত্যাকারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল।

কে এম সবুজ
ঝালকাঠির নলছিটিতে আনিস বিশ্বাস রুম্মান (১৮) হত্যাকারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে বরিশাল-পটুয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের দপদপিয়া জিরোপয়েন্ট এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করেন এলাকাবাসী। এতে নিহতের পরিবার ও স্বজনরাও অংশ নেয়। বিক্ষোভকারীরা বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে সড়কের দুই পাশে শত শত যানবাহন আটকা পরে। অবরোধকারীরা ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন পুলিশকে। এর মধ্যেও জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে না পারলে আবারো সড়ক অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুশিয়ারি দেন নিহতের স্বজন ও প্রতিবেশীরা। পরে পুলিশ এসে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় এলাকাবাসী।

আনিস বিশ্বাস রুম্মান

আনিস বিশ্বাস রুম্মান

রবিবার রাতে উপজেলার দপদপিয়া গ্রামে পুরনো বিরোধের জেরে রুম্মানকে গলাকেটে হত্যা করে প্রতিপক্ষরা। নিহত রুম্মান শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর টোল প্লাজায় কর্মরত ছিলেন। সে দপদপিয়া গ্রামের সত্তার বিশ্বাসের ছেলে।
পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, প্রতিবেশী আল মামুন ও রানা হাওলাদারদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল নিহত রুম্মানের পরিবারের। রবিবার রুম্মানের চাচা মুন্না বিশ্বাসের সঙ্গে দপদপিয়া ফেরিঘাট এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসে কথার কাটাকাটি হয় আল মামুনের ভাগিনা রিয়াদের। বিষয়টি রিয়াদ তার স্বজনদের জানালে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বিকেল থেকে অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয় মুন্নাদের বাড়ির আশেপাশে। মুন্নার ভাতিজা আনিস বিশ্বাস রুম্মান রাতে বাড়ির সামনে বের হলে তাকে আটক করে আল মামুন, রিয়াদ, বাপ্পি হাওলাদারসহ ১০-১২ জন যুবক। বাড়ির সামনের রাস্তায় ফেলে রুম্মানের গলাকেটে ফেলে রেখে যায় প্রতিপক্ষরা। চিৎকার শুনে গুরুতর অবস্থায় তাকে পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
দপদপিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা বলেন, রুম্মান অত্যন্ত ভাল একটি ছেলে। তার বাবা অনেক দিন ধরে অসুস্থ। ছেলেটি পড়াশোনার পাশাপাশি কাজ করে সংসার চালাচ্ছে। বিনা অপরাধে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করতে হবে।
ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) প্রশান্ত কুমার দে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের দাবিগুলো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আশাকরি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা কেউ পার পাবে না। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারের জন্য সর্বাত্তক কাজ করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews