ঝালকাঠিতে ‘মিথ্যা মামলার’ প্রমাণ নষ্ট করতে হামলার অভিযোগ

0
203

কে এম সবুজ
ঝালকাঠিতে ‘মিথ্যা মামলার’ প্রমাণ নষ্ট করতে এক নারীর ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ঝালকাঠি থানায় একটি মামলা করেছেন হামলার শিকার হাচিনা বেগম (৪০)। মামলাটি উপপরিদর্শ মো. সরোয়ার হোসেনকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন ওসি।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ঝালকাঠি শহরের বান্ধাঘাটা থেকে হাচিনা বেগম ওরফে খাদিজা আক্তার গত ১০ জুন বাসন্ডা এলাকার বাসায় যাচ্ছিলেন। বাসন্ডা সেতু এলাকায় তাকে একা পেয়ে শাওন মোল্লা সোহাগ ও তার বোন জিয়াসমিন আক্তার নুপুর পথরোধ করে। তারা হাচিনা বেগমের ছেলে সাইফুলের নামে একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ‘মিথ্যা মামলা’ দায়ের করেছিল। ওই মামলার ভিকটিম ৮ বছরের শিশুর একটি ভিডিও রেকর্ডে রয়েছে তার কাছে। মামলাটি মিথ্যা বলে ভিডিও রেকর্ডে স্বীকারোক্তি রয়েছে ভিকটিমের। এই প্রমাণ নষ্ট করার জন্য শাওন ও তার বোন নানা ষড়যন্ত্র শুরু করে। এমনকি তারা হাচিনা বেগমের ওপর সবসময় নজরদারিও করতেন। ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ৭টার দিকে তারা জবানবান্দির ভিডিও রেকর্ডটি হাচিনা বেগমের কাছে চায়। তিনি দিতে অস্বীকৃতি জানালে শাওন ও তার বোন হামলা চালিয়ে তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন, ২১ হাজার ৭০০ টাকাসহ ভ্যানিটি ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনায় গত ১২ জুন ঝালকাঠি থানায় হাচিনা বেগম ওরফে খাদিজা আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।
হাচিনা বেগম অভিযোগ করেন, জিয়াসমিন আক্তার নুপুরের সঙ্গে আমাদের পূর্বের পরিচয় ছিলো। ২০১৯ সালের ঈদের পরের দিন জিয়াসমিন পরিবারসহ আমাদের বাসায় বেড়াতে আসে। তখন তার মেয়ে আমাদের বাসা থেকে একটি স্বর্ণের চেইন চুরি করে। বিষয়টি ধরা পড়ায় আমাদের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয়। এর পরপরই আমার ছেলে কুয়েত যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তখন তাকে একটি মিথ্যা মামলার নাটক সাজিয়ে জিয়াসমিন আক্তার নুপুর ও তার ভাই শাওন কিছু টাকা পয়সা নেওয়ার ধান্দা করছিলেন। আমরা টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে। আমার ছেলে বিদেশে চলে গেলে, তারা এখন আমাকে হুমকি দিচ্ছে। আমার জীবনের নিরাপত্তা নেই। আমি বিষয়টি পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের ঊর্ধতন কর্তকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করছি। আমার ছেলের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারেরও দাবি জানাই।
এ ব্যাপারে ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, নাচিনা বেগমের দায়ের করা মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। এখানে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সত্য হলে চার্জশীট দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here