1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১১:১৩ অপরাহ্ন

রাজাপুরের আঙ্গারিয়া গ্রামের ভিক্ষুক রোকেয়া, ফেসবুকে দরিদ্রতার পোস্ট দেখে অসহায় বৃদ্ধাকে কলেজছাত্রীর সহায়তা

  • প্রকাশিত : রবিবার, ৫ জুলাই, ২০২০
  • ২১০ বার পড়া হয়েছে
ভিক্ষুক বৃদ্ধ অসহায় নারীকে কলেজ ছাত্রী ও তার সংগঠনের পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী শাড়ি ও টাকা উপহার দেন।

মোঃ আতিকুর রহমান
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অসহায় বৃদ্ধা রোকেয়া বেগমের অসহায়ত্বে কথা জেনে তার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন কলেজ ছাত্রী। ঈদুল ফিতরে করোনা দুর্যোগের কারণে ঈদে খরচ না করে সেই অর্থ থেকে অসহায় বৃদ্ধা ভিক্ষুক রোকেয়া বেগমকে সহায়তা করেছেন কলেজছাত্রী নুপুর আক্তার। ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার আঙ্গারিয়া গ্রামের মৃত মোকসেদ খানের স্ত্রী অসহায় বৃদ্ধ ভিক্ষুক রোকেয়া বেগম। তাকে ১ মাসের খাদ্য সামগ্রী, শাড়ি ও চিকিৎসা খরচ বাবদ আড়াই হাজার টাকা দেয়া কলেজছাত্রী নুপুর আক্তার রাজাপুর আলহাজ লালমোন হামিদ মহিলা কলেজের ডিগ্রি ২য় বর্ষের ছাত্রী এবং দক্ষিণ তারাবুনিয়া গ্রামের সাবেক পুলিশ সদস্য আবুল কালাম হাওলাদারের মেয়ে।
শনিবার (৪জুলাই) রাজাপুরের একটি পেশাজীবী সংগঠনের কার্যালয়ে ওই বৃদ্ধ অসহায় নারীর হাতে এসব উপহার তুলে দেন তিনি। এর আগে এই বৃদ্ধ নারীকে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসনের পক্ষে নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) আহমেদ হাসান এবং রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাব সহায়তা দিয়েছিলো।
নুপুর জানান, করোনার কারনে ঈদ করা হয়নি, এ কারনে কিছু টাকা জমানো ছিল। ফেসবুকে ওই বৃদ্ধ নারীর অসহায়ত্বের কথা ও অর্থাভাবে সঠিকভাবে চিকিৎসা হচ্ছে না, এমন সংবাদটি দেখে তাকে সহায়তার চিন্তা করি এবং পাশাপাশি আমাদের ফেসবুক গ্রæপের সদস্যদের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলাপ করলে তারাও এগিয়ে আসেন। এরপর ওই বৃদ্ধ নারীর ১ মাসের খাবারের জন্য ১৫ কেজি চাল, আলু ৫ কেজি, ১ কেজি ডাল, ২ লিটার তেল, ২ কেজি পিয়াজ, লবন ১ কেজি, ২টি সাবান ও ১টি শাড়ি উপহার হিসেবে তুলে দেন এবং অসহায় মানুষের সহযোগিতার জন্য তৈরি করা ‘‘আমাদের প্রিয় রাজাপুর হেল্প সেন্টার ফর রাজাপুর পুওর পিপল’’ ফেসবুক গ্রæপের একজন এডমিন ইমাম হাসান, সদস্য সাইফুল ইসলাম ও রিয়াজুল ইসলাম মিলে ২৫শ’ টাকা চিকিৎসা ও ঔষধ ক্রয়ের জন্য সহায়তা দিয়েছেন। আর কলেজ ছাত্রীকে খাদ্য ক্রয়ে সার্বিক সহায়তা করেছেন গ্রæপের সদস্য সৌরভ।
নুপুর আরো জানান, সমাজের ধনী ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধি ও বড় ব্যবসায়ীদের উচিত সমাজের এসব মানুষের পাশে দাড়ানো।
বৃদ্ধ নারী রোকেয়া বেগম জানান, স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে তিনি খুব অসহায় হয়ে পেটের দায়ে ভিক্ষাবৃত্তি শুরু করেন এবং দক্ষিণ সাউথপুর গ্রামের রিক্সা চালক জামাতা ও তার মেয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেন। করোনার কারনে যখন সবকিছু বন্ধ হয়ে যায় তখন ভিক্ষাও বন্ধ হয়ে যায়। এ কারনে চরম বিপাকে পড়েন তিনি। ঔষধ কিনে খাবারও সামর্থ ছিল না। এ সহযোগিতা পেয়ে তিনি বেশ খুশি এবং আল্লাহর কাছে সকলের জন্য দোয়া করেন।
তিনি আরও জানান, আঙ্গারিয়া গ্রামে স্বামীর ভিটায় সরকারি একটি ঘর পেলে তিনি সেখানে মাথা গোজাঁর ঠাঁই পেতেন।
মঠবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের দক্ষিণ সাউথপুর গ্রামের ইউপি সদস্য তরিকুল ইসলাম তারেক জানান, এ বৃদ্ধ নারী সত্যিই খুব অসহায় অবস্থায় রয়েছেন। তিনি একটি ঘর পাওয়ার যোগ্য। তাকে একটি ঘর দেয়া খুবই জরুরি। তিনি এ জন্য প্রশাসনের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews