1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩:২৩ পূর্বাহ্ন

রাজাপুরে বসতঘরের সামনে মলমূত্র ঢেলে চাচাকে অবরুদ্ধ

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৬ মে, ২০২০
  • ২৪৪ বার পড়া হয়েছে
ঝালকাঠি: রাজাপুরের সাতুরিয়া গ্রামের মোঃ বেলায়েত হোসেনকে তার ঘরের প্রবেশ পথে মলমূত্র ঢেলে ও বাঁশ দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে প্রতিপক্ষ।

স্টাফ রিপোর্টার
রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে সাবেক সেনা সদস্যের বসতঘরের সামনের প্রবেশদ্বারে মলমূত্র ঢেলে নোংড়া বানিয়ে এবং বাঁশ বেধে অবরুদ্ধ করার অভিযোগ উঠেছে ভাতিজা ও ভাইজি জামাতার বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে সাবেক ওই সেনা সদস্য প্রতিবাদ জানালে তাকে হত্যারও হুমকি দেয় তারা। সোমবার (২৫ মে) ঈদের দিন দুপুরে রাজাপুর থানায় অভিযোগ করেছেন চাচা মোঃ বেলায়েত হোসেন।
অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, সাতুরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হেমায়েত হোসেন নুরু’র পুত্র মোঃ মাহমুদ হোসেন রাজু (৩০) ও মেয়ে জামাতা মোঃ সবুজ খান (৩১)সহ স্থানীয় আরো ৫/৬ জনের একটি দল রবিবার (২৪ মে) রাতে (ঈদের চাঁদ রাতে) সাবেক সেনা সদস্য মোঃ বেলায়েত হোসেন এর বাড়ির পাশে সাউন্ডবক্স বাজিয়ে পিকনিক এর আয়োজন করে। রাজাপুর থানার টহল পুলিশ সাউন্ডবক্স এর শব্দ শুনে ঘটনা স্থলে গিয়ে সাউন্ডবক্স বন্ধ করে দেয়। কিন্তু পুলিশ ঘটনা স্থলে আসার বিষয়ে সংবাদদাতা হিসেবে বেলায়েত হোসেনকে ধারণা করে রাতের আধারে তার বাড়ির দরজা, বৈঠকখানা ও গেটে মলমূত্র লেপটে দিয়ে নোংরা করে দেয়। প্রবেশপথে বাঁশ বেধে অবরুদ্ধ করে রাখে। এ ব্যাপারে বেলায়েত হোসেন তার বড় ভাই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হেমায়েত হোসেন নুরু’র কাছে অভিযোগ করলে তারা বেলায়েতকে হত্যার হুমকি দেয়। নিরুপায় হয়ে বেলায়েত রাজাপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
বেলায়েত হোসেন জানান, তার আপন বড় ভাই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হেমায়েত হোসেন নুরু এর সাথে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছে। এজন্যই তারা আমার ঘরের পাশে সাউন্ডবক্স বাজিয়ে পিকনিক করছিলো। করোনা দুর্যোগের মধ্যে রাতে ভাতিজা ও ভাইর মেয়ে জামাইসহ কয়েকযুবক উচ্চশব্দে সাউন্ডবক্স বাজিয়ে পিকনিকের আয়োজন করে। সাউন্ডবক্স বন্ধ করেছে পুলিশ। আর আমার ঘরের সামনে ও বৈঠকখানায় মলমূত্র ঢেলে নোংড়া করে, প্রবেশ পথে বাঁশ বেধে রাখে।
এ ব্যাপারে মোঃ হেমায়েত হোসেন নুরু সম্পূর্ণ অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমার পুত্র এবং মেয়ে জামাতা এরকম কোন ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত নয়। যদি তারা এধরনের কাজ করে থাকে তাহলে তাদের বিচার করা হবে।
রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ জাহিদ হোসেন জানান, অভিযোগের তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থ্যা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews