1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১১:৩১ অপরাহ্ন

রেডিওর মেকার থেকে পল্লী চিকিৎসক রাজাপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, আড়াই লাখ টাকা জরিমানা

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২১ জুলাই, ২০২০
  • ২০৭ বার পড়া হয়েছে
বিভিন্ন এন্টিবায়োটিক ওষুধ ও মানুষকে দেওয়া চিকিৎসাপত্র জব্দ।

মো. এনামুল হোসেন খান
ঝালকাঠির রাজাপুরের কাঠাখালি বাজার এলাকা থেকে সোমবার বিকেলে সালাউদ্দিন ওরফে সালাউদ্দিন মেকার নামের এক পল্লী চিকিৎসক এবং তার চেম্বারে থাকা কবির ও নজরুল নামে তার দুই সহযোগিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত আটক করেছে। স্থানীয়রা জানান, পাশের উপজেলা কাঠালিয়ার বাসিন্দা সালাউদ্দিন এক সময়ে ভান্ডারিয়া উপজেলা সদরের পুকুর পাড়ে টিভি ও রেডিওর সার্ভিসিং করতেন। বর্তমানে দেখা যায় তিনি ডাক্তারি করেন। তবে আমাদের এলাকায় কেহ অসুস্থ হলে তাকে না দেখালেও দূর দূরান্ত থেকে প্রতিদিন প্রচুর রোগী ও ভিজিটরের সমাগম ঘটে। সপ্তাহের শুক্রবার বাদে ৬ দিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সকল ধরনের রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে থাকেন তিনি। তবে শর্তাবলীর মধ্যে অন্যতম ঔষধ সাপ্লাই তিনি নিজেই দিবেন। অভিযান চলার সময় তার নিজ চেম্বার কাম বাসা থেকে বিভিন্ন প্রকার এন্টিবায়োটিক ঔষধ জব্দ করা হয়। চেম্বারে একজন চিকিৎসক হিসেবে তার লেখা ব্যবস্থাপত্র জব্দ করা হয়। এ সময় চেম্বারে উপস্থিত ছিলেন ২০ এর অধিক চিকিৎসা নিতে আসা নারী পুরুষ। উল্লেখ্য, সালাউদ্দিনের চেম্বারে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের আধুনিক চিকিৎসা দিতে প্রয়োজনীয় সকল ধরনের উপকরণ বিদ্যমান রয়েছে। অভিযুক্ত সালাউদ্দিন হাওলাদার জানান, আরএমপি, ডিএমএ, ফার্মাসিস্ট ও ড্রাগ লাইসেন্স আছে। তিনি কোর্স করে এ পেশায় এসেছেন। সরকার তাকে সনদ দিয়েছেন। তার মোবাইল ও কম্পিউটারের দোকান আছে ভান্ডারিয়ায়। সেখানে কর্মচারিরা চালায়। তিনিও মাঝে মাঝে দোকানে বসেন এবং এখনও মোবাইল সার্ভিসিং করেন। তবে তিনি রেডিও এবং টিভির মেকারের বিষয়টি অস্বীকার করেন।
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী ইউএনও সোহাগ হাওলাদার জানান, ‘ভুয়া চিকিৎসক সালাউদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে তার বসতঘরে চেম্বার খুলে চিকিৎসার নামে প্রতারণা করে আসছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কানুদাসকাঠি গ্রামের কাটাখালী বাজার সংলগ্ন এলাকায় সালাউদ্দিনের বসতবাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সেজে মানুষকে চিকিৎসা দেওয়ার সময় হাতে নাতে সালাউদ্দিনকে আটক করা হয়। এসময় বিভিন্ন এন্টিবায়োটিক ওষুধ ও মানুষকে দেওয়া চিকিৎসাপত্র জব্দ করা হয়। আটককৃত ভুয়া ডাক্তার সালাউদ্দিনকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৫৩ ধারা অনুযায়ী দুই লক্ষ টাকা ও সহযোগিদেরকে ২৫ হাজার করে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়। ভবিষ্যতে এ ধরনের বেয়াইনি কাজ করবেন না মর্মেও মুচলেখা প্রদান করেন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews