1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:৩৫ পূর্বাহ্ন

ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীতে কাশফুলে প্রকৃতির অপরূপ সাজে সাজানো

  • প্রকাশিত : সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৬৪ বার পড়া হয়েছে
বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় আগন্তুকরা কাঁশফুল
ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় আগন্তুকরা কাঁশফুলের সাথে মিলেমিশে একাকার।

মো. আতিকুর রহমান
শরতের নীল আকাশে ভেসে বেড়ানো সাদা মেঘের ভেলা। এ নিয়ে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তার গীতাঞ্জলী কাব্যগ্েরন্থ লিখেছেন কবিতা। এ কবিতাটি এখন অনেকে ছড়া গান হিসেবেও গাইছেন। “আজ ধানের ক্ষেতে রৌদ্রছায়ায় লুকোচুরির খেলা। নীল আকাশে কে ভাসালে সাদা মেঘের ভেলা। আজ ভ্রমর ভোলে মধু খেতে, উড়ে বেড়ায় আলোয় মেতে, আজ কিসের তরে নদীর চরে চখাচখির মেলা। ওরে যাবো না আজ ঘরে রে ভাই, যাবো না আজ ঘরে! ওরে আকাশ ভেঙে বাহিরকে আজ নেব রে লুট করে। যেন জোয়ার জলে ফেনার রাশি, বাতাসে আজ ফুটেছে হাসি, আজ বিনা কাজে বাজিয়ে বাঁশি কাটবে সারা বেলা।”
ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীতে প্রকৃতির এমন অপরূপ সাজে সাজানোয় অনেকেই ছুটছেন বিনোদন স্পট হিসেবে। আগন্তুকরা কাঁশফুলের সাথে মিলেমিশে একাকার হয়ে ছবি তোলায় মেতে ওঠেন। আবার অনেক শর্ট ফিল্ম প্রযোজকরা আসেন ফিল্ম তৈরী করতেও। প্রতিটি ঋতুর রয়েছে আলাদা রূপ-বৈচিত্র। তাই প্রকৃতির ধারাবাহিকতায় শরৎ আসে অপরূপ স্বকিয়তা নিয়ে। বৈশ্বিক উষ্ণতা আর জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে প্রকৃতি যখন তার চিরায়ত রূপ হারাচ্ছে; তখন ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরী এলাকার মধ্যে তাকালেই দেখা যাবে নীল আকাশের নীচে বাতাসে দোল খায় সাদা কাশফুল। সেই কাশবন যেন হয়ে উঠেছে শিল্পীর তুলিতে আঁকা কোনো ছবি!
শরতের বিকেলে রোদ-বৃষ্টির লুকোচুরি উপেক্ষা করে যান্ত্রিক পরিবেশকে পেছনে ফেলে প্রকৃতির কাছ থেকে একটু প্রশান্তি পেতে প্রায়ই কাশবনে ছুটে আসেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। এখানকার কাশবন যে কারো মনকে উদ্বেলিত করে। সুগন্ধা নদীর তীর সংলগ্ন এলাকায় বিসিক শিল্পনগরীর ভিতরে ঢুকলেই চারদিকে কাশফুল, নদীর ধারে শরীর-মন জুড়িয়ে দেওয়া বাতাস। তাই দুপুরের তীব্র রোদ উপেক্ষা করে কাশবনে বসে কেউ গল্প করছেন। আবার কেউ নিজের ছবি তুলছেন। আর পড়ন্ত বিকেলের কথা তো বলেই শেষ করা যায় না।
কাশবনে আগন্তুকরা বলেন, ‘সাদা আর সবুজের মিলনমেলার পাশ দিয়ে বয়ে চলা সুগন্ধা নদীর তীরে ঘুরে বেড়ানোর অনুভূতিই অন্যরকম। সাদা মেঘের সঙ্গে এই কাশফুলের সাদা রং মনকেও সাদা করে দেয়।
ঋতুপরিক্রমায় আসা শরৎ ঋতু সাজিয়েছে ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীতে অপরূপ সাজে। শরতের বিকেলে রোদ-বৃষ্টির লুকোচুরি উপেক্ষা করে কাশফুলের ছোঁয়া নিতে ছুটে আসছে বিভিন্ন বয়সী দর্শনার্থীরা। সুগন্ধা নদীর তীর সংলগ্ন ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীর বালুচর যেন পরিণত হয়েছে সাদা আর সবুজের মিলনমেলায়।’
শরতের এ সময়টাতে সাদা আর সবুজের সাথে একাত্ম হয়ে ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীতে ছুটে বেড়ায় কোমলমতি শিশু থেকে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও বৃদ্ধরা। থোকা থোকা কাশবন সমতল জনপদ ঝালকাঠি বিসিক শিল্পনগরীকে নতুন রূপে সাজিয়েছে। এ যেন বিধাতার অপরূপ দান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews