1. admin@dainikshatakantha.com : dainikshatakantha :
সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন

আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রীমন্তকাঠি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি সংস্কার দাবি

  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৫ জুন, ২০২০
  • ৪৬৩ বার পড়া হয়েছে
আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ ঝালকাঠি সদর উপজেলার শ্রীমন্তকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টার।

স্টাফ রিপোর্টার
ঝালকাঠি সদর উপজেলার শ্রীমন্তকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টারটি আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া না হলে কয়েকলাখ টাকার সম্পদেও ক্ষতি হবে। ঝালকাঠির সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে গঠিত কমিটি আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তালিকা কর্তৃপক্ষের কাছে দিলেও সেই তালিকায় নাম নেই এ বিদ্যালয়টির।
জানাগেছে, ঝালকাঠি সদর উপজেলার শেখেরহাট ইউনিয়নের শ্রীমন্তকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি জরাজীর্ণ হয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠদানের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। বিদ্যালয়টি আধুনিকায়ন ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং ঝড়-বন্যায় জান-মাল রক্ষার্থে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর বিদ্যালয়টি ৩তলা বিশিষ্ট নতুন ভবনে প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণে ৩কোটি ৭লাখ ৬৯ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়। যার নীচতলা ও দ্বিতীয়তলা খোলা রেখে তৃতীয় তলায় শ্রেণি কক্ষে পাঠদানের উপযোগী করে কক্ষ তৈরী করা হয়। প্রতিটি জানালায় থাইগøাস দেয়া হয়। বৈদ্যুতিক গোলযোগ থাকলে দুর্যোগকালীন সময়ে বিদ্যুত সুবিধা পেতে ৪টি সোলার প্যানেল স্থাপন করা হয়। ২০১৪ সালের ২৫ জুন বিদ্যালয়টি নির্মাণ কাজ শেষ হয়। ৫ বছর অতিবাহিত হতেই নতুন করে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিয়েছে বিদ্যালয়টিতে।
স্থানীয়রা জানান, গত ২০ মে বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় আম্পানে বাতাসের বেগে জানালার বেশ কয়েকটি গ্লাস ভেঙে নীচে চুরমার হয়ে গেছে। থাইগ্লাস স্থাপনকারী এঙ্গেলগুলোও নড়বড়ে হয়ে গেছে। যা জানালার গ্রীলের সাথে বেধে রাখা হয়েছে। এছাড়াও বিদ্যালয়ের ছাদে বর্ষার পানি জমে থাকায় স্থাপিত ৪টি সোলার প্যানেল অকেজো হয়ে যাচ্ছে। দ্রুত সংস্কার করা না হলে কয়েক লক্ষ টাকার এ সম্পদ ধ্বংস হয়ে যাবার আশঙ্কা করেছেন স্থানীয়রা।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কল্পনা রানি ইন্দু জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানে বাতাসের বেগে কয়েকটি গ্লাস ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। বর্তমান বর্ষা মৌসূমে বৃষ্টির পানি বাতাসে জানালা থেকে ভিতরে ঢুকে জমে থাকছে। অফিস কক্ষের মধ্যে পানি ঢুকে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রও। ছাদে পানি জমে থাকায় ৪টি সোলার প্যানেল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সরকার ৩ কোটির বেশি টাকা ব্যায়ে ভবনটি এবং বিভিন্ন সামগ্রী স্থাপন করেছে। এই মুহূর্তে সংস্কার কাজ করা না হলে কয়েক লক্ষ টাকার মালামাল ক্ষতি হবে আশঙ্কা করে দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
সর্বস্বত্ত্ব © দৈনিক শতকন্ঠ - ২০২১ কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By BreakingNews